প্রচ্ছদ > দিনাজপুর জেলা > বড়পুকুরিয়া খনিতে শ্রমিকদের উপর কতৃপক্ষের লাঠি চার্জ

বড়পুকুরিয়া খনিতে শ্রমিকদের উপর কতৃপক্ষের লাঠি চার্জ

মেহেদী হাসান উজ্জল, ফুলবাড়ী দিনাজপুর প্রতিনিধি: দিনাজপুরের বড়পুকুরিয়া কয়লা খনিতে চলমান আন্দোলন বানচাল করার জন্য মঙ্গলবার সকাল ৯টায় শ্রমিকদের উপর কতৃপক্ষ লাঠি চার্জ করায় পুরো এলাকবাসী ফুঁসে উঠেছে। অতিরিক্ত পুলিশসহ পার্বতীপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার দিনভর অবস্থান করেও কোন সুরাহা করতে পারেননি। এঘটনায় একজন পুলিশসহ ৭ শ্রমিক আহত হয়েয়েছে।

জানা গেছে, দিনাজপুরের বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়নের ১৩ দফা দাবী ও খনি এলাকার ক্ষতিগ্রস্থ ২০ গ্রামের সমন্বয় কমিটির ৬ দফা দাবিতে ১২ মে শনিবার থেকে শ্রমিকেরা কর্মবিরতিসহ এলাকাবাসীর সাথে বিভিন্ন প্রকার কর্মসূচি শান্তিপুর্ন ভাবে পালন করে আসছে। সেই চলমান তথা অবস্থান কর্মসূচির চতুর্থ দিন ১৫ মে গতকাল মঙ্গলবার সকাল ৯টায় বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি কতৃপক্ষ খনি গেটে অবস্থানরত শ্রমিকদের উপর হঠাৎ লাঠি চার্জ শুরু করলে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া শুরুহয়। এঘটনায় ১ পুলিশ ৬ শ্রমিক ও ২ কর্মকর্তাসহ ৯ জন আহত হয়েছে।

এর পর মুহুর্তেই শ্রমিকদের মধ্যে দৌড়ঝাপ,হৈচৈ শুরু হয়ে যায়। শ্রমিকরা বিভিন্ন দোকান ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে অবস্থান নিয়ে নিজেদের রক্ষা করে। এ খবর চারিদিকে ছড়িয়ে পরলে শ্রমিকসহ ক্ষতিগ্রস্থ এলাকার শত শত নারী-পুরুষ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হতে থাকে। একপর্যায়ে শ্রমিকরা কর্মকর্তাদের ধাওয়া দিলে তারা খনি গেটের ভিতরে চলে যায়। এসময় পুণরায় খনি গেটে শ্রমিক ও এলাকাবাসী অবস্থান নিয়ে বিভিন্ন শ্লোগান দিতে থাকে।

লোকজনের সমাগম ক্রমেই যখন বাড়তে থাকে তখনই বেলা ১১টায় অতিরিক্ত পুলিশ ফোর্স নিয়ে পার্বতীপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার রাহেনুল হক ও ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে শ্রমিকদের নিবৃত করার চেষ্ঠা করেন। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দিনভর দফায় দফায় খনি কতৃপক্ষ ও শ্রমিকদের সাথে পৃথক পৃথক ভাবে বৈঠক করেও ঘটনার কোন সুরাহা করতে পারেননি।

বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়নের সভাপতি মোঃ রবিউল ইসলাম (রবি) ও সাধারণ সম্পাদক আবু সুফিয়ান বলেন, শ্রমিক ও ক্ষতিগ্রস্থ এলাকাবাসীর শান্তিপূর্ণ অবস্থান কর্মসূচির উপর বড়পুকুরিয়া কয়লা খনির এমডি, জিএম, এজিএমসহ বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তারা শ্রমিকদের উপর যেভাবে লাঠি চার্জ করেছে তা মধ্যযুগের ঘটনাকেও হার মানিয়েছে। শ্রমিক নেতারা ঘটনার তদন্তপূর্বক দোষীদের শাস্তি দাবী করেছেন।

পার্বতীপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার রাহেনুল হক বলেন, সমস্যা যেটাই হোক আলোচনা করেই সমাধান করা হবে।

বড়পুকুরিয়া কয়লা খনির এমডি হাবিব উদ্দিন আহম্মেদ-এর সাথে যোগাযোগ করা হলে, সাংবাদিক পরিচয় জেনে তিনি বলেন “পরে কথা হবে, মিটিং-এ আছি“।

Leave a Reply

Your email address will not be published.